আজ ২৯শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৩ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

আটোয়ারীতে স্বাস্থ্য বিধি মেনে মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের অর্ধ বার্ষিক পরীক্ষা শুরু

মোঃ জাহেরুল ইসলাম আটোয়ারী(পঞ্চগড়) প্রতিনিধি:

পঞ্চগড়ের আটোয়ারীতে বৈশ্বিক মহামারী কোভিড-১৯ সংক্রমনের কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের নিজ নিজ বাড়িতে অর্ধ বার্ষিক পরীক্ষা শুরু হয়েছে। এব্যাপারে উপজেলার রাধানগর হাজী সাহার আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আবুল হোসেন বলেন,দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যালয়গুলো বন্ধ থাকলেও অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের সাথে মোবাইল ফোনে লেখাপড়ার খবরাখবর রেখেছি। করোনা কালে শিক্ষার্থীরা লেখাপড়ায় অনেকটা পিছিয়ে পড়ার সম্ভাবনা ভেবে পরীক্ষা গ্রহনের উদ্যোগ গ্রহন করি। প্রধান শিক্ষক বলেন, পরীক্ষার সিলেবাস দু’মাস আগেই বিদ্যালয়ের নোটিশ বোর্ডে ঝুলিয়ে দেয়া হয়েছে এবং সেখান থেকে সিলেবাস সংগ্রহ করে শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া চালিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়।

 

বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ শিক্ষার্থীদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে পরীক্ষার ফি ছাড়াই প্যাকেট বন্দী প্রশ্নপত্র অভিভাবকদের হাতে তুলে দেন। পরীক্ষা চলাকালীন অভিভাবকরা পরীক্ষার্থীদের পাশে সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত বসে নজরদারী করতে দেখা গেছে। প্রধান শিক্ষক সহ সংশ্লিষ্ট সহকারী শিক্ষকগণের তদারকিতে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। প্রধান শিক্ষক বলেন, ১৫ জুলাই থেকে পরীক্ষা শুরু হয়েছে। আপাদত অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। পরবর্তীতে ক্রমান্বয়ে অন্যান্য শ্রেণির শিক্ষার্থীদেরও স্বাস্থ্য বিধি মেনে নিজ নিজ বাড়িতে পরীক্ষা গ্রহনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। করোনা কালে শিক্ষার্থীরা যেন লেখাপড়া ছেড়ে বাড়িতে অলস সময় না কাটে, সেজন্য অভিভাবকদের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ অব্যাহত রাখা হয়েছে। তিনি বলেন, আমাদের বিদ্যালয়টি প্রত্যন্ত গ্রামের ভিতর। মেধাবী শিক্ষার্থীরা শহরের নামিদামী বিদ্যালয়গুলোতে ভর্তি হয়। আর গ্রামের অসচ্ছল দুর্বল শিক্ষার্থীদের নিয়ে আমাদের পথ চলা।

 

বিদ্যালয়ের সুনাম অক্ষুন্ন রাখার জন্যই শিক্ষকদের অক্লান্ত পরিশ্রম করতে হয়। রাধানগর হাজী সাহার আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির পরীক্ষার্থী কুলসুম কলি বলেন, বিদ্যালয়ের নোটিশ বোর্ড হতে সিলেবাস সংগ্রহ করে লেখপড়া চালিয়েছি। সিলেবাস অনুযায়ী এখন পরীক্ষা দিচ্ছি। প্রশ্নপত্র সহজ হয়েছে।পরীক্ষা দিতে ভালই লাগছে। জনৈক শিক্ষার্থীর অভিভাবক বলেন, হেড স্যার সহ অন্যান্য স্যাররা প্রায় দিনই মোবাইল ফোনে আমার সন্তানের লেখাপড়ার খোজখবর নেন। এলাকার সুশীল সমাজ রাধানগর হাজী সাহার আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের এমন উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন।

 

বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোঃ অলিউর রহমান বলেন, শিক্ষকদের এ উদ্যোগ শিক্ষার্থীদের নিশ্চয়ই কল্যাণ বয়ে আনবে। অপরদিকে রাধানগর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এ প্রক্রিয়ায় পরীক্ষা নিচ্ছে বলে জানাগেছে। সচেতন মহলের মতে অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো এধরনের ভুমিকা রাখলে করোনা কালে শিক্ষার্থীরা বাড়িতে অলস সময় পার না করে লেখাপড়া নিয়ে ব্যস্ত থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর