আজ ২৭শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১১ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

আগৈলঝাড়ার মৃত্যুর প্রহর গোনা নাসিমাকে বাঁচাতে ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান ও সরকারে কাছে স্বামী ও সন্তানদের মানবিক সাহায্যের আবেদন

রুবিনা আজাদ, আঞ্চলিক প্রতিনিধি, বরিশাল:
হাইপো থাই রয়েড ইজমসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত আগৈলঝাড়ার নাসিমা অর্থ সংকটে চিকিৎসার অভাবে নিজ বাড়িতে ¯^ামী সন্তানের সামনে এখন মৃত্যুর প্রহর গুনছে। মা’য়ের সু-চিকিৎসার জন্য সমাজের স্ব-হৃদয় ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান ও সরকারে কাছে মানবিক সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন নাসিমার অসহায় তিন সন্তান ও হতভাগ্য স্বামী।

বরিশালের আগৈলঝাড়ার উপজেলার বাকাল ইউনিয়নের ফুল্লশ্রী গ্রামের বাসিন্দা তিন সন্তানের জননী, নাসিমা বেগমের অসহায় দরিদ্র ভ্যান চালক স্বামী কাওসার বেপারী জানান, তার স্ত্রী নাসিমা (৪৬) গত ১০/১২ বছর আগে গলগন্ড রোগে আক্রান্ত হলে সেই সময়ে পয়সা নদীতে সেবা প্রদানকারী ভাসমান হাসপাতাল “জীবন তরী’’তে নিয়ে স্ত্রী’কে স্বল্প খরচে চিকিৎসা করান।

ওই হাসপাতালের চিকিৎসকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ি চিকিৎসা গ্রহন করে বেশ কয়েক বছর সুস্থ ছিল নাসিমা। এরই মধ্যে গত ৪/৫ বছর যাবত পুণরায় অসুস্থ হয়ে পরে নাসিমা। দুই মেয়ে ও এক ছেলের সংসারে আর্থিক সংকটের কারণে আর ভাল কোন চিকিৎসা করাতে না পেরে স্থানীয় চিকিৎকের পরামর্শ অনুযায়ি মাঝে মধ্যে ঔষধ খেয়ে আসছিলো নাসিমা।

স্থানীয় চিকিৎসায় নাসিমা আরোগ্য লাভ না করে ক্রমান্বয়ে শারীরিকভাবে অসুস্থ হয়ে পরতে থাকে।স্বামীর আর্থিক দুর্বলতার জন্য নিজের অসুস্থতার কথা হতভাগ্য স্বামীকেও জানতে দেয়নি নাসিমা।সম্প্রতি নাসিমা ভীষণ অসুস্থ হয়ে পরলে সহায় সম্বল বিক্রি করে নাসিমাকে বারডেম হাসপাতালে ডা. নিয়াজ মোসাব্বির খান ও বরিশাল শের-ই-বাংলা হাসপাতালের ডা. মাহাবুব আলম মীর্জার কাছে চিকিৎসা নিতে গেলে চিকিৎসকেরা বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষা করে হাসপাতালে ভর্তির কথা জানিয়ে দেন। আর্থিক সমস্যায় জন্য হাসপাতালে ভর্তি হতে না পেরে বর্তমানে নাসিমা নিজ বাড়িতে চিকিৎসা ও ঔষধ বিহীন সংকটাপন্ন অবস্থায় মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে।

আগৈলঝাড়া উপজেলা হাসপাতালের প্রধান ডা. বখতিয়ার আল মামুন বৃহস্পতিবার আন্তরিকতার সাথে গুরুতর অসুস্থ নাসিমা ও তার সকল কাগজপত্র পরীক্ষা নিরীক্ষা করে জানান, নাসিমা থাই রয়েড এর জনিত সমস্যা (হাইপো থাই রয়েড ইজম) রোগে ভুগছেন। এর চিকিৎসা দীর্ঘ মেয়াদী। তবে চিকিৎসা করাতে পারলে সুস্থ হবে নামিসা। ডা. বখতিয়ার আল মামুন ব্যবস্থাপত্র লিখে অসহায় নাসিমার জন্য হাসপাতাল ও সমাজসেবা অধিদপ্তরের মাধ্যমে কিছু ঔষধের ব্যবস্থাও করে দেন।

দীর্ঘ মেয়াদী চিকিৎসার মাধ্যমে নাসিমাকে বাঁচাতে তার স্বামী ভ্যান চালক কাওসার বেপারী ও সন্তানেরা দেশের স্ব-হৃদয় ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান ও সরকারে কাছে মানবিক সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন। যোগাযোগ ও মানবিক সহায়তা প্রদানের জন্য, স্বামী কাওসার, বিকাশ নম্বর-০১৮২২৯৮২০০২।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর