বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:২৭ অপরাহ্ন
ই-পেপার

আগৈলঝাড়ায় শোকের মাসে জাতির পিতা ও ১৫ আগস্টের শহীদদের অবমাননা করে ব্যানার কলেজের অধ্যক্ষ মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে রাস্ট্রদ্রোহীতা অভিযোগে তদন্ত কমিটি গঠন

রুবিনা আজাদ, আঞ্চলিক প্রতিনিধি, বরিশাল:
আপডেট সময়: বৃহস্পতিবার, ৫ আগস্ট, ২০২১, ৭:৪২ অপরাহ্ণ

এ কেমন ধৃষ্টতা ? শোকের মাসে জাতির পিতা ও ১৫ আগষ্ট সকল শহীদদের অবমাননা করায় বরিশালের আগৈলঝাড়ার পয়সা মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজের অধ্যক্ষ মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে রাস্ট্রদ্রোহীতা অভিযোগে ব্যবস্থা নিয়েছে প্রশাসন।

সরকারী সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে শোক দিবসের দুই বছর আগের পুরানো এবং ছেড়া ব্যানার টানানোর ঘটনায় তোলপাড় হলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবুল হাশেম বৃহস্পতিবার শেষ বিকেলে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে রাষ্ট্র দ্রোহীতার অভিযোগ তদন্তর জন্য তিন সদস্যর তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন, পাশাপাশি অধ্যক্ষ মিজানুর রহমানকে শোকজ করার কথাও জানিয়েছেন ইউএনও।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষক কর্মচারীদের বেতনে প্রতি স্বাক্ষরকারী মো. আবুল হাশেম জানান, শোকের মাসে সরকারী নির্দেশ অমান্য করে প্রতিষ্ঠানটিতে ছেড়া-ফুটা ও পুরান ব্যানার টানিয়ে জাতির জনকসহ ১৫আগষ্ট সকল শহীদরে প্রতি অশ্রদ্ধা ও অবমাননা করা হয়েছে। যা রাস্ট্র দ্রোহীতার শামিল বলে জানান তিনি।

তিনি আরও জানান- বিষয়টি তার নজরে আসায় তিনি অধ্যক্ষ মিজানুর রহমানের কাছে ফোনে এর ব্যাখ্যা চাইলে মিজানুর রহমান সন্তোষজনক কোন ব্যাখ্যা দিতে না পারায় বৃহস্পতিবার শেষ বিকেলে তিনি ঘটনা তদন্তর জন্য উপজেলা সমাজসেবা অফিসার সুশাান্ত বালাকে আহŸায়ক করে তিন সদস্যর কমিটি গঠন করেন। কমিটির অপর সদস্যরা হলেন উপজেলা সমবায় অফিসার মো. কামরুজ্জামান ও থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক পদ মর্যাদার একজন।

এই কমিটিকে আগামী তিন কার্য দিবসের মধ্যে তাদের প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। কমিটি গঠনের পাশাপাশি তিনি (ইউএনও) নিজে অধ্যক্ষ মিজানুর রহমানকে শোকজ করবেন বলে জানিয়েছেন।

জানা গেছে, জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং ১৫ আগস্ট শহীদদের প্রতি সম্মান জানাতে দেশের শি¶া প্রতিষ্ঠানগুলোতে দৃশ্যমান স্থানে ১ আগস্ট থেকে ৩১ আগষ্ট পর্যন্ত ড্রপডাউন ব্যানার তৈরি করে তা টানানোর নির্দেশ দিয়েছেন শিক্ষা মন্ত্রনালয়।
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির ১৮ জুলাইয়ের সিদ্ধান্তর আলোকে ২৫জুলাই শিক্ষা মন্ত্রণালয় দেশের সকল সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্ত শাসিত, স্থানীয় সরকার, শিক্ষা ও বে-সরকারি প্রতিষ্ঠানের ভবনে ড্রপডাউন ব্যানার টানানোর নির্দেশ দিলেও উপজেলার পয়সা মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজ-এ গত ১আগষ্ট থেকে সরকারী নির্দেশনার পরিপন্থী একটি শোক দিবসের ব্যানার টানিয়ে রাখে।

ড্রপডাউন ব্যানারের পরিবর্তে আড়া-আড়িভাবে টানানো ওই ব্যানারটিও ২০১৯সালের লেখা রয়েছে। ৫দিন যাবত ওই ব্যানারটি টানানো দেখে বিক্ষোভে ফেটে পরেন স্থানীয়রা। অবশেষে বৃহস্পতিবার সকালে স্থানীয়দের তোপের মুখে ছেড়া, ফুটা পুরানো ব্যানারটি অপসারন করে করে দুপুরের পরে ড্রপডাউন একটি ব্যানার টানিয়ে দিলেও দেখা গেছে তাও এক বছর আগের।

পুরান ও ছেড়া ব্যানার অপসারনের আগেই তার ছবি ও ভিডিও ভাইরাল হয়ে যায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। ভাইরাল হওয়া ১মিনিট ৩৭ সেকেন্ডের ভিডিও এবং ছবিতে অসংখ্য মতামত দিয়েছে সামাজিক যোগাযোগ ব্যবহারকারীরা। ওই সকল মতামত পর্যালোচনা করে দেখা গেছে অধ্যক্ষ মিজানুর রহমানকে রাষ্ট্রদ্রোহী আখ্যা দিয়ে প্রতিষ্ঠান থেকে তাঁর বিচার ও অপসারণ দাবি করেছেন বেশীর ভাগ মতামত প্রদানকারীরা।
এর আগে সম্প্রতি এসএসসি পরীক্ষার আ্যাসাইনমেন্ট এর নামে ওই অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান বিদ্যালয়ের ১৯৯জন শিক্ষার্থীর কাছ থেকে ৪শ টাকা করে অবৈধভাবে আদায় করার সংবাদ প্রকাশিত হলে ইউএনও আবুল হাশেম এর নির্দেশে তিনি উত্তোলন করা টাকা শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের ফেরত দিয়েছিলেন।
আভিযুক্ত অধ্যক্ষ মিজানুর রহমানকে একাধিকবার ফোন দিলেও তিনি রিসিভ না করায় তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

 

 

#চলনবিলের আলো / আপন


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন
এক ক্লিকে বিভাগের খবর